প্রচলিত কিছু ভুল ধারণা

img

গর্ভাবস্থা এবং মাতৃত্বের সঙ্গে জড়িত বিভিন্ন অনুষ্ঠান আছে। এর মধ্যে অধিকাংশই নিরাপদ এবং প্রথা অনুসারে উদযাপন করা হয়ে থাকে। উদাহরণস্বরূপ, মায়ের ‘বিশ্রাম’ বা বাচ্চার ‘মালিশ’ করার রীতির পেছনে রীতিমত বিজ্ঞান সম্মত কারণ রয়েছে।

যদিও, এই সমস্ত আচার অনুষ্ঠানের বাড়াবাড়ি মা তাঁর সন্তানের জন্যে হানিকারক হয়ে উঠতে পারে।

ভুল ধারণা: এই অবস্থায় বেশি জল খাওয়া উচিত নয়।

বাস্তবএই সময় শরীরে জলের সবথেকে বেশি প্রয়োজন। কোষ্ঠকাঠিন্য এবং অর্শ এড়াতে এবং স্তনে দুধের যোগান বাড়াতে এই সময় প্রচুর জল খাওয়া উচিত। অন্যথায় গুরুতর স্নায়বিক জটিলতার ফলে ডিলেরিয়াম বা সাইকোসিস দেখা দিতে পারে।

ভুল ধারণা: দু’জনের পরিমাণে খাবার খাওয়া উচিত।

বাস্তব: অনেকেই এই ধারনাটিকে নতুন মায়েদের অতাধিক খিদে পাওয়ার সাথে গুলিয়ে ফেলেন। বিশেষজ্ঞরা বলেন যে একজন মায়ের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে, সুষম এবং পর্যাপ্ত খাবার খাওয়ার সাথে সাথে নিয়মিত ব্যায়াম করা উচিত।

ভুল ধারণা: হালকা রঙের বা সাদা রঙের খাবার খাওয়া উচিত। এতে বাচ্চা ফর্সা হয়।

বাস্তবখাবারের রঙের সাথে বাচ্চার গায়ের রঙের কোনও সম্পর্ক নেই। কিন্তু অতিরিক্ত তেল মশলা দেওয়া খাবার এই সময় খাওয়া উচিত নয়। 

ভুল ধারণা: কিছু কিছু সামাজিক প্রথা অনুযায়ী প্রসবের পরে মাকে পান এবং চুন খাওয়ানো হয়।

বাস্তবচুনে ক্যালশিয়াম থাকে, যা স্বাস্থের পক্ষে উপকারী। বিশেষজ্ঞদের মতে পরিমিত পরিমাণে ের সেবন সম্পূর্ণ নিরাপদ।

ভুল ধারণা: ‘পোয়াতি মহিলাদের রাতবিরেতে বেরোতে নেই!’

বাস্তবএর কোনও বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা নেই।

ভুল ধারণা: গর্ভাবস্থার সপ্তম মাসে সাধ ভক্ষণ উৎসব পালন করা হয়। এর ফলে বাচ্চার শ্রবণ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

ভুল ধারণা: সাধের সময় বাচ্চাকে কাঁচের চুড়ি দেওয়া হয় যাতে বাচ্চার রিফ্লেক্স ভাল হয়।

বাস্তব: বাচ্চার সাধের সঙ্গে বাচ্চার স্বাস্থের কোনও সম্পর্ক নেই। বরং সাধ বাচ্চার মাকে আনন্দে রাখতে এবং ভাল থাকতে সাহায্য করে।

ভুল ধারণা: মাথায় স্কার্ফ বেঁধে রাখলে ঠাণ্ডা লাগবে না, পেটে কাপড় বেঁধে রাখলে চামড়া ঝুলে যাবে না। 

বাস্তব: শক্ত করে মাথায় স্কার্ফ বাঁধা থাকলে গলার কাছে রক্ত চলাচল বন্ধ হয়ে বিপত্তি ডেকে আনতে পারে। একই রকম ভাবে পেটে কাপড় বেঁধে রাখলে চামড়া টানটান হয় না। এর জন্যে নিয়মিত সংশ্লিষ্ট ব্যায়াম করা উচিত। (http://www.mayoclinic.org/healthy-lifestyle/womens-health/in-depth/kegel-exercises/art-20045283)

এই জাতীয় কোনও অনুষ্ঠান পালন করার আগে একবার একজন সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে নেওয়া উচিত।