ভ্রান্ত ধারণা এবং প্রকৃত ঘটনা: পুরুষ ও মানসিক স্বাস্থ্য

ভ্রান্ত ধারণা: পুরুষরা কোনও মানসিক স্বাস্থ্যের সমস্যার মুখোমুখি হয় না। তারা মানসিকভাবে খুবই শক্তিশালী হয়।

বাস্তব ঘটনা: একটা ধারণা প্রচলিত আছে যে সব পুরুষই মানসিকভাবে শক্তিশালী হয়। কারণ পুরুষতান্ত্রিক সংস্কৃতিতে পুরুষরা তাদের আবেগানুভূতি কখনোই খোলাখুলি প্রকাশ করতে চায় না এবং যখন তারা এমন কাজ করে তখন অন্যদের চোখে তারা হাস্যকর হয়ে ওঠে এবং 'দুর্বল ও মেয়েলি'-র তকমা এঁটে যায় তাদের গায়ে। এটি তাদের মানসিক স্বাস্থ্যের পক্ষে দীর্ঘ সময় ধরে ক্ষতিকারক হয়।

ভ্রান্ত ধারণা: পুরুষরা তাদের আবেগকে খুব ভালোভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে, যা মহিলারা পারে না।

বাস্তব ঘটনা: আমাদের সংস্কৃতিতে একটা জনপ্রিয় ধারণা রয়েছে যে প্রকৃত পুরুষরা কখনোই কাঁদে না। এর ব্যতিক্রম তখনই দেখা যায় যখন কারোর জীবনে অত্যন্ত চরম পরিণতি ঘটে, যেমন- প্রিয়জনকে হারানো। এর মধ্য দিয়ে আমরা এই  ধারণাই পাই যে পুরুষদের আবেগের বহিঃপ্রকাশ সহজে ঘটে না। একমাত্র চরম পরিস্থিতিতে না পড়লে এর ব্যতিক্রম হয় না। এভাবে বহু পুরুষ অ্যালকোহল, ড্রাগ বা মারমুখী আচরণের আশ্রয় নিয়ে তাদের আত্মবিশ্বাস বা আত্মনির্ভরতা টিকিয়ে রাখে এবং আবেগকে অস্বীকার করে পুরুষত্বের ভাবমূর্তি গড়ে তুলতে উৎসাহ পায়।

ভ্রান্ত ধারণা: পুরুষদের ক্ষেত্রে কখনোই অন্যের সাহায্য নেওয়ার প্রয়োজন পড়ে না। তারা নিজেরাই নিজেদের সমস্যার মোকাবিলা করতে পারে।

বাস্তব ঘটনা: সংস্কৃতিগতভাবে বিশ্বাস করা হয় যে পুরুষদের হাতেই পরিবারের সমস্ত দায়দায়িত্ব পালনের ভার থাকে এবং নিজেদের পরিবার সংক্রান্ত যেকোনও সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে তারাই প্রধান। এই ঘটনা আমাদের এই বার্তাই দেয় যে কোনও বিপর্যয় বা মানসিক স্বাস্থ্যের সমস্যার মুখোমুখি হলে পুরুষরা তাদের অক্ষমতার মোকাবিলা নিজেরাই করতে চায়। এবিষয়ে তারা অন্য কারোর সঙ্গে  আলোচনা করে না বা অন্যের সাহায্য চায় না।

ভ্রান্ত ধারণা: বিয়ে একজন পুরুষের মানসিক অসুস্থতাজনিত সমস্যার সমাধান করতে পারে।

বাস্তব ঘটনা:মানসিক অসুস্থতার সমাধানের জন্য দরকার সঠিক চিকিৎসা, যার  মধ্যে ওষুধ প্রয়োগ ও থেরাপি- দুটোই থাকতে পারে। মানসিক অসুস্থতার সময়ে মানুষের বিয়ের থেকেও গুরুত্বপূর্ণ হল তার রোগের লক্ষণগুলোর প্রতি নজর দেওয়া ও তা দূর করার জন্য সঠিক চিকিৎসা করা। বিয়ে কখনোই মানসিক অসুস্থতাজনিত সমস্যার সমাধান হতে পারে না এবং এর ফলে একজন মানুষের প্রত্যাশিত সঙ্গীর জীবনে শুধুই খারাপ পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে।

 

সূত্র:

  1. Masculinity and men's mental health, Gary R Brooks, Journal Of American College Health.