We use cookies to help you find the right information on mental health on our website. If you continue to use this site, you consent to our use of cookies.

ব্যক্তিত্ব বিকারঃ ভুল ধারনা এবং বাস্তব

ভুল ধারনাঃ এসব কোনও অসুখ নয়। এরা আসলে কারো সাথে মিশতে জানে না।
বাস্তবঃ 
কোনও মানুষের অনিয়মিত এবং অস্বাভাবিক আচরণকে কোনও ভাবেই স্বাভাবিক পর্যায় ফেলা যায় না। কিন্তু অনেকেই এই সাধারণ তথ্যটি মেনে নিতে চায় না। ব্যক্তিত্ব বিকারে আক্রান্ত লোকজন প্রকৃত অর্থেই মনোরোগী।

ভুল ধারনাঃ  এই রোগে আক্রান্ত হলে উন্নতির আশা কম। কারণ এরা প্রচণ্ড জেদি এবং একগুঁয়ে হয়।  এরা আসলে পাল্টাতেই চায় না।

বাস্তবঃ সত্যি কথা বলতে আমরা কেউই পাল্টাতে চাই না। আমরা প্রত্যেকেই নিজের মতো চলতে পছন্দ করি এবং অন্যথা হলে বিষয়টা মন থেকে মেনে নিতে পারি না। একজন স্বাভাবিক মানুষ তা-ও পরিস্থিতির চাপে অনেক কিছু মেনে নেন, কিন্তু একজন ব্যক্তিত্ব বিকারে আক্রান্ত রোগী তা করতে গিয়ে অত্যন্ত সমস্যার সম্মুখীন হন। ডিপ্রেশনের মতো এই রোগেরও চিকিৎসা প্রয়োজন।

ভুল ধারনাঃ ব্যক্তিত্ব বিকারের রোগীরা অত্যন্ত স্বার্থপর হয়

বাস্তবঃ  ব্যক্তিত্ব বিকারের রোগীরা তার আশেপাশের লোকজনদেরকে নিয়ে যথেষ্ট উদ্বিগ্ন হয়। কিন্তু প্রবল উপসর্গের কারণে এরা মাঝে মাঝে বুঝতে পারে না যে তার ব্যবহারে প্রিয়জনেরা আঘাত পাচ্ছেন। কিন্ত ভালবাসা এবং স্নেহবোধের কারণে এরা পরে যথেষ্ট কষ্ট পায় এবং আত্মগ্লানিতে ভুগতে থাকে। নিজের মধ্যে এই লড়াই ক্রমাগত চলতে থাকায় সেই উদ্বেগ সাধারণত বাইরে প্রকাশ পায় না।

ভুল ধারনাঃ জীবনের প্রতি বিতৃষ্ণা থেকে নয়, শুধুমাত্র অন্যের দৃষ্টি আকর্ষণ করবার জন্যে এরা আত্মহননের পথ বেছে নেয়

বাস্তবঃযে কোনোও ক্ষেত্রেই আত্মহত্যার মত সিদ্ধান্ত কেউ শখ করে নেন না। এটা  সাহায্যের জন্য মরিয়া  আর্তনাদ। সেই মুহূর্তে দাড়িয়ে তাদের দুখ, কষ্ট এবং যন্ত্রণা এতটাই প্রবল হয়ে থাকে যে, তারা সেই দুর্বিষহ জীবন থেকে মুক্তি পাবার আর কোনও পথ দেখতে পায় না।